Text size A A A
Color C C C C
পাতা

সিটিজেন চার্টার

 

ক) বেসরকারী শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের অনুমতি, স্বীকৃতি প্রদান ও নবায়নঃ

(১)      কর্তৃপক্ষের নির্দেশে জেলার বেসরকারি নিু মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও সকল প্রকার মাদরাসা অনুমতি ও স্বীকৃতি প্রদান এবং স্বীকৃতি নবায়নের জন্য পরিদর্শক প্রতিবেদন আঞ্চলিক উপ-পরিচালকের দপ্তরে প্রেরণ।

(২)      কর্তৃপক্ষের নির্দেশ অনুযায়ী জেলার মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের স্বীকৃতি নবায়নের জন্য বিদ্যালয় পরিদর্শন এবং পরিদর্শনের পর ২ (দুই) সপ্তাহের মধ্যে প্রতিবেদন সংশ্লিষ্ট বোর্ড, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর এবং আঞ্চলিক উপ-পরিচালকের দপ্তরে প্রেরণ।

(৩)     ঊধর্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে নবম ও দশম শ্রেণী খোলার অনুমতি প্রদানের জন্য স্কুল ও মাদরাসা পরিদর্শন ও বোর্ড সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট প্রতিবেদন প্রেরণ।

(৪)      উপযুক্ত অভিযোগের ভিত্তিতে বেসরকারি স্কুল ও মাদরাসা পরিদর্শন এবং পরিদর্শনের পর অভিযোগের বিষয়ে প্রমাণাদি সহকারে সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট সুপারিশ প্রেরণ।

(৫)      জেলার নাবায়ন যোগ্য নিু মাধ্যমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের স্বীকৃতি নবায়নের ব্যবস্থা গ্রহণ ।

(৬)     বিধি-বিধান অনুযায়ী নিু মাধ্যমিক বিদালয় স্থাপনের পূর্বানুমতি প্রদান।

 

খ) বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বেতন-ভাতদি প্রদানঃ

(১)      সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বেতন প্রথম এম.পি.ও ভূক্তির জন্য নির্ধারিত ছকে প্রয়োজনীয় তথ্যাদি ও মতামতসহ শিক্ষা মন্ত্রণালয়,  মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর এবং আঞ্চলিক উপ-পরিচালকের দপ্তরে প্রেরণ।

(২)      প্রথম এম.পি.ও আদেশপ্রাপ্ত সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষক/কর্মচারীদের এম.পি.ও ভূক্তির কাগজপত্র যাচাই-বাছাই করে মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে প্রেরণ।

(৩)     কার্য নির্বাহী কমিটি বিহীন বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সকল প্রকার বিল পাশ, উত্তোলন ও বিতরণ।

(৪)      পরিদর্শন ও নিরীক্ষা অধিদপ্তর কর্তৃক অডিট আপত্তির ব্রডশিট প্রতিষ্ঠান প্রধান কর্তৃক প্রদানের পর মন্তব্যসহ ঊর্ধবতন কর্তৃপক্ষের কাছে প্রেরণ।

(৫)      সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বার্ষিক আয়-ব্যায়ের হিসাব বিবরণী পরীক্ষান্তে প্রাপ্ত অনিয়মসমূহ উল্লেখপূর্বখ প্রণীত প্রতিবেদন উপযুক্ত কর্তৃপক্ষের নিকট প্রেরণ।

(৬)     বেসরকারি স্কুল ও মাদরাসা পরিদর্শনকালে শিক্ষক/কর্মচারীদের বিনানুমতিতে অনুপস্থিত, কর্তব্যে  অবহেলা কিংবা অন্য যে কোন আর্থিক ও শৃঙ্খলাজনিত অনিয়মের কারণে প্রয়োজনবোধে অনধিক ৬ মাস পর্যন্ত বেতন-ভাতাদির সরকারি অংশ সাময়িকভাবে স্থগিত রাখার আদেশ প্রদান। উক্ত আদেশ জারির ৭ (সাত) দিনের মধ্যে স্থগিতাদেশের কারণ এবং প্রমানাদি সহ বিস্তারিত প্রতিবেদন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে প্রেরণ। অধিদপ্তর যাচাই-বাছাই করে স্থগিতাদেশ স্থায়ীভাবে বহাল কিংবা প্রত্যাহার করবেন।

গ) বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনাঃ

(১)      সকল বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের নিয়মিত ম্যানিজিং কমিটি গঠনের জন্য প্রিজাইডিং অফিসার নিয়োগ।

(২)      নিুমাধ্যমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং মাদরাসার নিয়মিত ম্যানিজিং কমিটির শিক্ষানুরাগী সদস্য পদে মনোনয়নের জন্য আঞ্চলিক উপ-পরিচালকের নিকট সুপারিশ প্রেরণ।

(৩)     নিুমাধ্যমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয় এবং দাখিল মাদরাসার এডহক কমিটিতে শিক্ষক প্রতিনিধি মনোনয়নের জন্য আঞ্চলিক উপ-পরিচালকের নিকট সুপারিশ প্রেরণ এবং অভিভাবক প্রতিনিধির মনোনয়নদান।

(৪)      বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে দায়েরকৃত অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্তকরণ এবং প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সুপারিশসহ  ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট প্রতিবেদন প্রেরণ।

(৫)      মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা কমিটির ব্যর্থতা, অনিয়ম ও দূর্নীতি ইত্যাদি কারণে দোষী ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে যথাযথ শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ বরাবরে প্রমাণাদিসহ সুপারিশ প্রেরণ।

 

ঘ) প্রশাসনিকঃ

(১)      জেলা শিক্ষা অফিসের আয়ন ও ব্যয়ন কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন।

(২)      অধীনস্থ সকল নন-গেজেটেড কর্মচারীর বার্ষিক গোপনীয় প্রতিবেদন লেখা ও প্রতিস্বাক্ষরের জন্য আঞ্চলিক কার্যালয়ে প্রেরণ এবং প্রতিস্বাক্ষরের পর তা সংরক্ষণ।

(৩)     অধীনস্থ গেজেটেড কর্মকর্তাদের বার্ষিক গোপনীয় প্রতিবেদন লেখা ও প্রতিস্বাক্ষরের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট প্রেরণ।

(৪)      উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারদের বার্ষিক গোপনীয় অনুবেদন লিখন ও প্রতিস্বাক্ষরের জন্য ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট প্রেরণ।

(৫)      উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের অফিস প্রধান ব্যতীত অন্যান্য কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের বার্ষিক গোপনীয় অনুবেদন প্রতিস্বাক্ষরকরণ।

(৬)     উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস ও জেলা শিক্ষা অফিসে কর্মরত গেজেটেড, নন-গেজেটেড কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের ভ্রমণ নিয়ন্ত্রণ ও ভাতা মঞ্জুর।

(৭)      উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারদের নৈমত্তিক ছুটি মঞ্জুর এবং অন্যান্য ছুটি অনুমোদনের জন্য ঊধ্বর্তন কর্তৃপক্ষের নিকট সুপারিশ প্রেরণ।

(৮)     উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের নন-গেজেটেড কর্মচারীদের নৈমিত্তিক ছুটি ব্যতীত অন্যান্য ছুটি অনুমোদনদান।

(৯)      উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের নন-গেজেটেড কর্মচারীদের জেলার  অভ্যন্তরে বদলি এবং অন্য জেলায় বদলির ক্ষেত্রে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট সুপারিশ প্রেরণ।

(১০)    উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের গেজেটেড কর্মকর্তাদের বদলির প্রস্তাব ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট প্রেরণ।

(১১)    জেলা শিক্ষা অফিস এবং উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের ৪র্থ শ্রেণীর শূণ্য পদে বিধি অনুরসরণপূর্বক কর্মচারী নিয়োগ।

(১২)    উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস, সরকারি বিদ্যালয় ও জেলা শিক্ষা অফিসে মোট অনুমোদিত জনবল, কর্মরত জনবল  এবং শূণ্য পদ সমূহের বিস্তারিত বিবরণী প্রতি ৬ (ছয়) মাস পর পর নির্ধারিত ছকে ঊর্ধতন কর্তৃপক্ষের নিকট প্রেরণ।

(১৩)    মাধ্যমিক পর্যায়ের বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শূণ্য/সৃষ্ট পদে নিয়োগের ছাড়পত্র প্রদান।

(১৪)    জেলা কোটা অনুযায়ী তপসিলী উপবৃত্তি মঞ্জুর করা।

(১৫)    জেলা শিক্ষা অফিস ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের নন-গেজেটেড কর্মচারীদের টাইম স্কেল মঞ্জুর।

(১৬)    জেলা শিক্ষা অফিস ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের ২য় শ্রেণীর কর্মকর্তাদের শ্রান্তি বিনোদন ছুটি মঞ্জুরকরণ।

(১৭)    জেলা শিক্ষা অফিস ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের গেজেটেড কর্মকর্তাদের ছুটি (এলপিআরসহ) মঞ্জুরির কাগজপত্র উপ-পরিচালকের দপ্তরে প্রেরণ।

(১৮)    জেলা ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের ৩য় ও ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারীদের দক্ষতাসীমা অতিক্রমের অনুমতি দান এবং অবকাশ কালকে কর্মরত হিসাবে অনুমোদন প্রদান।

(১৯)    জেলা শিক্ষা অফিস ও উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের ৪র্থ শ্রেণীর কর্মচারীদের সাধারণ ভবিষ্য তহবিল অগ্রিম মঞ্জুরি দান এবং এল পি আর / পেনসনধারীদের চূড়ান্ত পরিশোধ মঞ্জুর।

(২০)    ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ কর্তৃক প্রদত্ত বিবিধ কাজ।

 

ঙ) শিক্ষার গুনগত মান উন্নয়নঃ

(১)      জেলা শিক্ষা সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য/উপাত্ত সংগ্রহ, সংরক্ষণ,  মূল্যায়ন, প্রয়োজন মাফিক ব্যবহার ও ঊধ্বর্তন কর্তৃপক্ষকে সরবরাহ।

(২)      সংশ্লিষ্ট জেলার নিুমাধ্যমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহের শিক্ষার গুনগত মান উন্নয়নকল্পে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ।

(৩)     শিক্ষার গুণগত মান উন্নয়নকল্পে শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক গৃহীত স্কুল ট্যুইনিং, একাডেমিক কাউন্সিল নেটওয়ার্ক ও রিসোর্স সেন্টার কার্যক্রম পরিচালনা।

(৪)      শিক্ষার গুনগত মান উন্নয়নকল্পে আন্তঃ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান শিক্ষক বিনিময়, প্রাতিষ্ঠানিক নিজস্ব ব্যয় নির্বাহ সমন্বয়ে সেমিনার ও ওয়ার্কশপ কার্যক্রম এবং স্ব-মূল্যায়নী কর্মসূচী প্রবর্তন।

(৫)      কর্তৃপক্ষের নির্দেশে জুনিয়র বৃত্তি পরীক্ষা পরিচালনায় সহায়তা প্রদান।

(৬)     ষষ্ঠ শ্রেণীর মূল্যায়ন সমীক্ষা ও অষ্টম শ্রেণীর মূল্যায়ন সমীক্ষা অনুষ্ঠান।

(৭)      সময়ে সময়ে সরকার কর্তৃক গৃহীত উদ্ভাবনী  কর্মসূচী বাস্তবায়নে পদক্ষেপ গ্রহণ।

(৮)     স্ব-উদ্যোগে ও উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে নিুমাধ্যমিক ও মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহের শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ/কর্মশালা ও উদ্ধুদ্ধকরণ সভা অনুষ্ঠান,মনিটরিং এবং এতদবিষয়ে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে ষন্মাসিক প্রতিবেদন প্রদান।

(৯)      শিক্ষার গুনগত মান উন্নয়ন কার্যক্রমসমূহের বাাসরিক অগ্রগতি প্রতিবেদন পরবর্তী বাসরের মার্চ মাসে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের শাখা-১১ তে প্রেরণ।

 

চ) সহশিক্ষাক্রমিক কার্যক্রমঃ

(১)      স্কাউট ও গাইড কার্যক্রমের মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনাসমূহ বাস্তাবায়ন পরিবীক্ষণ।

(২)      বৃক্ষ রোপন ও কার্যক্রমের অগ্রগতি ও পরিবীক্ষণ  এবং বৃক্ষরোপন ও সংক্ষণের জন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান প্রধানকে উদ্ধুদ্ধকরণ।

(৩)     সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক গৃহীত সহশিক্ষাক্রমিক কার্যক্রমের বাস্তবায়ন মনিটরিং।

(৪)      জাতীয় পর্যায়ের বিভিন্ন দিবস ও কর্মসূচী পালনে নির্ধারিত দায়িত্ব পালন।

(৫)      জাতীয় স্কুল ও মাদরাসা ক্রীয়া সমিতির উপজেলা হতে জেলা পর্যন্ত সংগঠন পরিচালনা ও নিয়ন্ত্রণ ও জেলা ভিত্তিক ক্রীড়ানুষ্ঠানের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহন।

 

ছ) সমন্বয়ঃ

(১)      সংশ্লিষ্ট জেলার নিুমাধ্যমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠানসমূহের শিক্ষার গুনগত মান উন্নয়নকল্পে প্রয়োজনীয় কার্যক্রম গ্রহণ।

(২)      উপজেলা/থানায় নিযুক্ত প্রকল্প কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে ন্যূনপক্ষে প্রতিমাসে একটি সমন্বয় সভা করা এবং সভার সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন অগ্রগতি আঞ্চলিক উপ-পরিচালকের নিকট প্রেরণ।

(৩)     জেলা পর্যায়ের অন্যান্য দপ্তরের সভা-সমাবেশে যোগদান।

 

জ) তথ্য হালনাগাদঃ

(১)      ব্যানবেইস নির্দেশিত শুমারি/জরিপ, স্টাডি, তথ্যানুসন্ধান, কর্মশালা, ডাটা মনিটরিং, স্থানীয় প্রশিক্ষণ, ফোকাস গ্রুপ ডিসকাশন এবং অন্যান্য কাজ নির্ধারিত সময়ে সম্পন্ন হওয়া নিশ্চত করা।

(২)      মেট্রোপলিটন এলাকার সংশ্লিষ্ট জেলা শিক্ষা অফিসারগণ কর্তৃক মেট্রোপলিটন এলাকার পোস্ট প্রাইমারি স্তরের সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের হালনাগাদ তালিকা অর্ধ-বার্ষিক (Semi-annually) ভিত্তিতে ‘ব্যানবেইস’ এ প্রেরণ নিশ্চিত করা।

 

ঝ) একাডেমিক ও প্রশাসনিক তত্ত্বাবধান এবং পরিদর্শনঃ

(১)      প্রতিমাসে ৫টি বেসরকারি নিম্নমাধ্যমিক, ৫টি বেসরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও ৫টি দাখিল পর্যায়ের মাদরাসা মন্ত্রণালয়ের অনুমোদিত ছক অনুযায়ী একাডেমিক পরিদর্শন।

(২)      প্রতিমাসে ০৩টি বেসরকারি নিম্নমাধ্যমিক , ৩টি বেসরকারি মাধ্যমিক ও ৩টি দাখিল পর্যায়ের মাদরাসার প্রশাসনিক পরিদর্শন।

(৩)     একাডেমিক ও প্রশাসনিক পরিদর্শন শেষে মন্তব্য ও সুপারিশ সংশ্লিষ্ট স্কুল, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, নিরীক্ষা অধিদপ্তর, শিক্ষা বোর্ড এবং এনসিটিবি-তে প্রেরণ।

(৪)      বাসরান্তে প্রতি জেলার সমাপ্ত একাডেমিক ও প্রশাসনিক পরিদর্শন সমূহের সমন্বিত প্রতিবেদন এর অনুলিপি শিক্ষা মন্ত্রণালয় এবং মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরে প্রেরণ।

(৫)      শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ছাত্রীদের ষষ্ঠ হতে দ্বাদশ শ্রেণী পর্যন্ত উপবৃত্তি প্রদানের বিষয় তদারকি।

(৬)     সকল সরকারি ও বেসরকারি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের  জরিপ ফরমে তথ্য সংগ্রহপূর্বক মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের ইএমআইএস সেলে ইন্টারনেট যোগে প্রেরণ।

(৭)      সংশ্লিষ্ট জেলার নিু মাধ্যমিক, মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পর্যায়ের শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের আয়-ব্যয়, বাৎসরিক পাঠ পরিকল্পনা ও বাজেট, সভায় গৃহীত সিদ্ধান্তসমূহ ও বাস্তবায়ন অগ্রগতি মূল্যায়ন, আর্থিক স্বচ্ছতা, পরীক্ষা/মূল্যায়ন বিষয়ে তদারকি ও প্রয়োজনীয় সুপারিশ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট প্রেরণ।

 

ঞ) উন্নয়ন কার্যক্রম তদারকিঃ

(১)      সরকারি অর্থায়নে উন্নয়নের জন্য নির্বাচিত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের উন্নয়ন কাজ তদারকি এবং কাজের গুণগত মান নিশ্চিতকল্পে সুপারিশ এবং সুপারিশ সংশ্লিষ্ট সকলের (নির্বাহী প্রকৌশলী ও পরিচালক শিক্ষা প্রকৌশলী অধিদপ্তর, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়) নিকট প্রেরণ।

(২)      শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক জরিপকৃত নীতিমালা অনুযায়ী যৌথ অর্থায়নে (সরকার এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠান) প্রতিষ্ঠানভিত্তিক প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি (পিআইসি) কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন নির্মান কাজ পরিদর্শন এবং যৌথ অর্থায়নে সদ্ব্যব্যবহার নিশ্চিতকরণ।

(৩)     উন্নয়নের আওতা বর্হির্ভূত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিদ্যমান অবকাঠামো এবং শিক্ষার্থী সংখ্যার নিরিখে প্রয়োজনীয় ভৌত সুবিধাদি পর্যালোচনাপূর্বক ভবিষ্যা উন্নয়ন পরিকল্পনা সম্পর্কে প্রতিবেদন প্রেরণ।

(৪)      উপবৃত্তি বিতরণ কার্যক্রম সংক্রান্ত ‘ম্যানুয়েল’ সন্নিবেশিত নীতিমালা অনুরসণে উপবৃত্তি বিতরণ করা হচ্ছে কিনা তা তদারকি ও সুপারিশ মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর এবং শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে প্রেরণ। উপবৃত্তির বিতরণ কার্যক্রমে যে কোনো অনিয়মের তদন্ত পূর্বক ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট প্রতিবেদন প্রেরণ।

 

ট) প্রশিক্ষণ ও কর্মচারীঃ

(১)      শিক্ষক, সহকারী প্রধান শিক্ষক, প্রধান শিক্ষক ও কর্মচারী কিংবা সমমানের পদে চাকুরীরত কর্মকর্তা-কর্মচারীদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা এবং মনোনয়ন প্রদান।

(২)      ক্লাস্টারে প্রশিক্ষণ হচ্ছে কিনা সে ব্যাপারে উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তার কর্মকান্ড তদারকি করা।

 

ঠ) অভিযোগ নিষ্পত্তিঃ

(১) এলাকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিরুদ্ধে কোন অভিযোগ পাওয়া গেলে তা নিষ্পত্তি করণ। তাঁর পর্যায়ে নিষ্পত্তি করা না গেলে সুপারিশ সহকারে ঊর্ধ্বতন পর্যায়ে প্রেরণ।